রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ১৩ই অগ্রহায়ণ ১৪২৮

১১ দিন পর গাজায় যুদ্ধবিরতি

গাজা উপত্যকায় ১১ দিনের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর অবশেষে বৃহস্পতিবার (২০ মে) অস্ত্রবিরতিতে সম্মত হয় হামাস এবং ইসরায়েল। এই সংঘর্ষে দুই শতাধিক মানুষ মারা যাবার খবর পাওয়া গেছে।

শুক্রবার (২১ মে) স্থানীয় সময় রাত ২টায় অস্ত্রবিরতি চুক্তি কার্যকর হয়। যুদ্ধবিরতির আনন্দে অনেক ফিলিস্তিনিই ‘আল্লাহু আকবর’ বলতে বলতে রাস্তায় নেমে আসেন।

ইসরায়েলি গণমাধ্যম হারেজৎ এক প্রতিবেদনে যুদ্ধবিরতি বিষয়ক এক প্রতিবেদনে জানায়, ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর কার্যালয়ের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নিরাপত্তা বিষয়ক মন্ত্রিসভা “নিঃশর্ত… যুদ্ধবিরতির জন্য মিশরের একটি উদ্যোগ সর্বসম্মতিক্রমে গ্রহণ করেছে।”

অন্যদিকে, আল জাজিরার খবরে বলা হয়, ফিলিস্তিনি মুক্তিকামী গোষ্ঠী হামাস ও ইসলামিক জিহাদ এক বিবৃতিতে শুক্রবার ভোর আড়াইটা (বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটা) থেকে যুদ্ধবিরতি কার্যকর হবে বলে জানিয়েছে।

এদিকে, যুদ্ধবিরতির খবরে গাজা, পশ্চিমতীরসহ ফিলিস্তিনের অন্যান্য এলাকার হাজার হাজার মানুষ মধ্যরাতেই পতাকা নিয়ে রাস্তায় নেমে আসেন এবং বিজয়ের “ভি” চিহ্ন দেখিয়ে উল্লাস করেন।

গত ১০ মে রাত থেকে শুরু হয়ে ২০ মে পর্যন্ত গাজায় অব্যাহত বোমা হামলা ও গোলাবর্ষণ করে ইসরায়েল। এতে ৬৫ শিশুসহ ২৩২ ফিলিস্তিনি নিহত হয়। ধ্বংস হয় হাজারও ঘরবাড়ি। আহত হন অন্তত দুই হাজার মানুষ। অপরদিকে, ফিলিস্তিনের ছোঁড়া ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে দুই শিশুসহ অন্তত ১২ ইসরায়েলি নিহত হয়, আহত হন প্রায় ৩০০ জন।

সংবাদটি আপনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন