রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ১৩ই অগ্রহায়ণ ১৪২৮

জার্মানির আত্মঘাতী গোলে ফ্রান্সের জয়

নিজেদের প্রথম ম্যাচে জার্মানি ডিফেন্ডারের আত্মঘাতী গোলের জয় নিয়ে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু করেছে ফ্রান্স। মঙ্গলবার (১৫ জুন) দিবাগত রাতে মিউনিখের আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় জার্মানিকে ১-০ গোলে হারিয়েছে ফরাসিরা।

এই আত্মঘাতী গোলে পরাজয় নিয়ে জোয়াকিম লোর শিষ্যরা মাঠ ছাড়ে। কিন্তু অফসাইডের কারণে করিম বেনজেমা ও কিলিয়ান এমবাপ্পের দুটি গোল বাতিল না হলে, একবার পোস্টে লেগে বল না ফিরলে আরও বড় ব্যবধানে হেরে মাঠ ছাড়তে হতো জার্মানিদের।

এদিন ম্যাচজুড়ে এনগোলো কন্তের পাশাপাশি দারুণ খেলা পল পগবা ২০ মিনিটে ডান পায়ের বাইরের দিকের অংশের ব্যবহার দেখানো দারুণ পাস দেন জার্মানি বক্সের বাঁ দিকে। পাসটা খুঁজে নেয় ফরাসি লেফটব্যাক হার্নান্দেজকে। তার গতিময় ক্রসের উদ্দেশ্য ছিল পোস্টের ৪-৫ গজ সামনে ছুটে আসতে থাকা এমবাপ্পের দিকে। কিন্তু হামেলস তা হতে দিতে চাননি। পা বাড়িয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু হলো উল্টো! তার পায়ে লেগে বল ঢুকে যায় জার্মানিরই জালে!

এরপর দুবার দুর্ভাগ্য ফ্রান্সকে হতাশ করল। প্রথমে ৬৭ মিনিটে এমবাপ্পের গোল বাতিল। পগবার দারুণ পাস ধরে বক্সে ঢুকে বলের ওপর পায়ের দারুণ নাচনে দুই ডিফেন্ডারকে ঘোল খাইয়ে শট নেন এমবাপ্পে। কিন্তু তার দারুণ বাঁকানো শটটা জার্মান গোলকিপার মানুয়েল নয়্যারকে ফাঁকি দিয়ে পোস্টে ঢুকতেই রেফারির বাঁশি জানিয়ে দেয়, পগবার পাসের সময়ই এমবাপ্পে অফসাইডে ছিলেন।

ম্যাচজুড়ে গতির ঝড় তোলা বেশ কয়েকটি দৌড়ে মুগ্ধতা ছড়ানো এমবাপ্পের এমনই এক দৌড় থেকে ফ্রান্স দ্বিতীয় গোলটি পেয়েই গিয়েছিল। কিন্তু ৮৫ মিনিটে করিম বেনজেমার সে গোলও বাতিল হলো অফসাইডে। পাল্টা আক্রমণে ওঠা ফ্রান্সের মাঝমাঠ থেকে পগবার পাস খুঁজে নিয়েছিল ডানদিকে দৌড়াতে থাকা এমবাপ্পেকে। তার থ্রু ধরে বেনজেমা ফাঁকা পোস্টে বল জালে জড়ান। কিন্তু যখনই মনে হচ্ছিল, সাত বছর পর ফ্রান্সের জার্সিতে কোনো বড় টুর্নামেন্টে ফিরেই প্রথম ম্যাচে গোল করে ফেলেছেন বেনজেমা, আবার অফসাইডের বাঁশি। বেনজেমা নন, এবারও অফসাইড ছিলেন এমবাপ্পে!

মাঠজুড়ে এত তারকা, এত সৃষ্টিশীল খেলোয়াড়, এত গোল করার মতো নাম…কিন্তু ৯০ মিনিটের দারুণ লড়াই শেষে গোল ছাড়াই জিততে হলো ফ্রান্সকে।

সংবাদটি আপনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন