সোমবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২১ | ২১শে অগ্রহায়ণ ১৪২৮

কলম্বিয়াকে হারিয়ে ফাইনালে ব্রাজিলের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনা

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ম্যাচটি মীমাংসিত হলো না, গড়াল টাইব্রেকারে। গোলরক্ষক এমি মার্টিনেজের টাইব্রেকার বীরত্বে কলম্বিয়াকে হারিয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ হিসেবে ফাইনালের মঞ্চে চলে গেছে আর্জেন্টিনা। আজ বুধবার সকালে ব্রাজিলিয়া স্টেডিয়ামে কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে কলম্বিয়াকে টাইব্রেকারে ৩-২ গোলে হারিয়েছে লিওনেল স্কালোনির দল। এর আগে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ১-১ গোলে অমীমাংসিত থাকে ম্যাচটি।

টাইব্রেকারে কলম্বিয়ার শেষ শটটি খেটিয়ে দেন গোলরক্ষক এমি মার্টিনেজ

এদিন শুরু থেকেই কলম্বিয়ার রক্ষণে প্রেস করে খেলতে থাকে আর্জেন্টিনা। এতে চার মিনিটের মাথায় সুযোগও তৈরি করে আর্জেন্টাইনরা। তিনজনকে কাটিয়ে ডি বক্সে ঢুকে সেখানে ডিফেন্ডারকে বিভ্রান্ত করে জায়গা বানিয়ে ক্রস বাড়ান লাউতারো মার্টিনেজের উদ্দেশ্যে। তবে লাউতারোর হেড পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়।

তবে গোলের জন্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি স্কালোনির শিষ্যদের। ম্যাচের সপ্তম মিনিটে মিডফিল্ড থেকে বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে বক্সে জায়গা করে নেওয়া মার্টিনেজের উদ্দেশ্যে নিখুঁত পাস মেসি। সেখান থেকে ঠাণ্ডা মাথায় জালে বল জড়িয়ে দলকে এগিয়ে লাউতারো মার্টিনেজ।

গোল করার পর লাওতারো মার্টিনেজের উৎসব

এই গোলের অ্যাসিস্টের মাধ্যমেই মেসির অ্যাসিস্টসংখ্যা দাঁড়ালো ৫-এ, যা কোপার ইতিহাসের সর্বোচ্চ। সাথে ৪টি গোলও হয়ে গেছে মেসি। চলতি কোপায় আর্জেন্টিনার শেষ ১১ গোলের নয়টাতেই থাকল মেসির অবদান।

লিওনেল মেসি

এই ম্যাচে শুরু থেকেই কলম্বিয়া শরীরনির্ভর ফুটবল খেলছিল। মেসি, লাওতারো, দি পল ও লো সেলসোকে বারবার বাজেভাবে ফাউল করছিলো কলম্বিয়ানরা। তবে প্রথমার্ধে আর কোনো গোল না হলে এই ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় আর্জেন্টাইনরা।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরু থেকেই মেসিকে জায়গা নেওয়ার সুযোগই দিচ্ছিলেন না কলম্বিয়ানরা। ছয় মিনিটের মধ্যে মেসিকে তিনবার ফাউলের শিকার হতে হয়েছে। তারপরও মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রণ ছিল আর্জেন্টাইনদের দখলেই। তবে স্রোতের বিপরীতে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেন কলম্বিয়ানরা।

লুইজ দিয়াজের গোলে সমতায় ফেরে কলম্বিয়া

ম্যাচের ৬১ মিনিটে এডউইন কারদোনার পাস থেকে বল ধরে গোল পোস্টের বাম পাশে নিয়ে আসেন লুইজ দিয়াজ। আর্জেন্টিনা ডিফেন্ডার পেজেল্লা সঙ্গে থেকে ফেরানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। গোলরক্ষক মার্টিনেজের ওপর দিয়ে আলতো টোকায় আর্জেন্টিনার জালে বল জড়িয়ে দেন দিয়াজ। এতে সমতায় ফেরে কলম্বিয়া।

এরপর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে আর কোনো গোল না হলে এই ১-১ গোলের অমীমাংসিত ম্যাচটি গড়ায় টাইব্রেকারে। টাইব্রেকারে কলম্বিয়াকে ৩-২ গোলে হারিয়ে কোপা আমেরিকার ফাইনালে পৌঁছে গেছে আর্জেন্টিনা। যেখানে প্রতিপক্ষ হিসেবে থাকছে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিল।

১৯৯৩ সালের কোপা জয়ের পর এই প্রথম কোন আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টের ফাইনালে পৌঁছাল আর্জেন্টাইনরা। গত তিনবারই সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছে মেসি বাহিনীরা। এদিকে সব শেষ ২০০১ সালে কোপার শিরোপা জিতেছিল কলম্বিয়া। তবে এই শিরোপার জন্য আর্জেন্টিনার প্রতিক্ষা অনেক লম্বা।

বাংলাদেশ সময় আগামী ১২ জুলাই ভোর ৬টায় কোপা আমেরিকার শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে মাঠে নামবে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা। তার আগে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে ১১ জুলাই ভোর ৬টায় পেরুর মুখোমুখি হবে কলম্বিয়া।

সংবাদটি আপনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার করুন